নারীরা ধর্ষণ করলে শাস্তি নয় কেন, আদালতে মামলা

নারীরা ধর্ষণ করলে শাস্তি নয় কেন, আদালতে মামলা

পুরুষদের ওপর চালানো যৌন নির্যাতনের ক্ষেত্রেও বিচার দাবি করেছেন ভারতের সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ঋষি মালহোত্রা। তার বক্তব্য, অনেক সময় নারীরাও যৌন নির্যাতনের মতো অপরাধে জড়িয়ে পড়েন। এক্ষেত্রেও দোষীদের শাস্তি পাওয়া উচিত। এজন্য সুপ্রিম কোর্টে জনস্বার্থ একটি মামলা করেছেন তিনি।

মামলায় ওই আইনজীবী বলেন, পুরুষরাও ধর্ষণ ও যৌন নিগ্রহের শিকার হতে পারেন। এক্ষেত্রে তাদের ন্যায় বিচার পাইয়ে দেবে কে? বর্তমান আইনে যদি কোনো পুরুষ কোনো  নারীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও যৌন নিগ্রহের অভিযোগ করেন, তবে ওই নারীর বিরুদ্ধে কোনো আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হয় না। তাই অনেক ক্ষেত্রে আইনের ফাঁক গলে পার পেয়ে যায় অপরাধীরা।

কিছুদিন আগে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট প্রশ্ন তোলে, ব্যভিচারের সাজা লিঙ্গ নিরপেক্ষ হতে পারে কি-না। এ মামলার সঙ্গে ওই বক্তব্যও যোগ করে দেওয়া হয়েছে। আইনজীবী ঋষি মালহোত্রা বলেন, অপরাধের কোনো লিঙ্গ হয় না। তাই আইনও লিঙ্গ নিরপেক্ষ হওয়া উচিত। যে কারণে পুরুষরা অপরাধ করেন, একই কারণে নারীরাও অপরাধে জড়ান। তাই আইনের উচিত অপরাধীদের মধ্যে ভেদাভেদ না করা।

তিনি আরও জানান, এক সমীক্ষায় উঠে এসেছে, ২২২ জন ভারতীয় পুরুষের মধ্যে ১৬.১ শতাংশকে যৌনতায় লিপ্ত হতে বাধ্য করা হয়েছে। মেয়েদের ধর্ষণ নিয়ে যেমন গবেষণা হয়, পুরুষদের ধর্ষণ নিয়ে তার এক শতাংশও হয় না। কিন্তু বহু সমীক্ষা বলছে, পুরুষরাও ধর্ষণের শিকার হন, আর তার সংখ্যা যতোটা মনে করা হয় তার থেকে অনেক বেশি। তাই এ ধরনের অপরাধ লিপিবদ্ধ করতে ও জনসমক্ষে আনতে লিঙ্গ নিরপেক্ষ আইনের প্রয়োজন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*