নতুন বছরে তিন রেকর্ড

নতুন বছরে তিন রেকর্ড

নতুন বছর। ৩ জানুয়ারি বুধবার। লেনদেন হয়েছে সবে তিন কার্যদিবস। নতুন বছরের তৃতীয় কার্যদিবসে এসে গতকাল বুধবার সূচক ও বাজার মূলধনে তিন রেকর্ড হয়েছে দেশের প্রধান শেয়ারবাজারে। প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) শরিয়া সূচক ডিএসইএস ও বাছাই কোম্পানির সমন্বয়ে গঠিত ডিএস ৩০ সূচক দুটি গতকাল দিন শেষে নতুন উচ্চতায় উঠেছে। পাশাপাশি বাজার মূলধন ছাড়িয়েছে ৪ লাখ ২৮ হাজার ৫০৯ কোটি টাকা।

ডিএসইর ওয়েবসাইটের তথ্য বলছে, নতুন বছরের তিন কার্যদিবসে সূচকের টানা উত্থানে এসব রেকর্ড হয়েছে বুধবার। টানা উত্থানে নতুন রেকর্ড ছুঁই ছুঁই করছে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্সও। রেকর্ড উচ্চতায় পৌঁছানো থেকে মাত্র ২০ পয়েন্ট দূরে অবস্থান করছে প্রধান সূচকটি। গত তিন দিনের উত্থানে ডিএসইএক্স সূচকে মোট ৭৪ পয়েন্ট যুক্ত হয়েছে। তাতে গতকাল দিন শেষে এ সূচকটি ৩৮ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৩১৮ পয়েন্টে।

এখন পর্যন্ত ডিএসইএক্স সূচকটির রেকর্ড উচ্চতা ৬ হাজার ৩৩৭ পয়েন্টের। সর্বশেষ গত ২৬ নভেম্বর এই রেকর্ড উচ্চতায় উঠেছিল ডিএসইএক্স সূচকটি। গতকাল দিন শেষে প্রধান সূচকটি যেখানে পৌঁছেছে তাতে আর ২০ পয়েন্ট নতুন করে যুক্ত হলে তা আবারও রেকর্ড উচ্চতায় উঠে যাবে। সূচকের ঊর্ধ্বমুখী ধারা অব্যাহত থাকলে খুব বেশি অপেক্ষায় থাকতে হবে না তার জন্য।

ঢাকার বাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানির মধ্য থেকে বিভিন্ন মানদণ্ডে বাছাই করা ভালো মৌলভিত্তির ৩০ কোম্পানির সমন্বয়ে গঠিত ডিএস-৩০ সূচকটি। গতকাল দিন শেষে এ সূচকটি ২ হাজার ৩০২ পয়েন্টের রেকর্ড উচ্চতায় উঠেছে। গতকাল এ সূচকে যুক্ত হয়েছে ১০ পয়েন্ট। ২০১৪ সালের ২০ জানুয়ারি চালু হওয়া শরিয়া সূচক ডিএসইএস সূচকটিও ১ হাজার ৪১২ পয়েন্টের রেকর্ড উচ্চতায় উঠেছে। গতকাল দিন শেষে এ সূচকে যুক্ত হয়েছে প্রায় সাড়ে ৯ পয়েন্ট।

এদিকে গতকাল ঢাকার বাজারে লেনদেন হওয়ার বেশির ভাগ কোম্পানির শেয়ারের দাম বাড়ায় এক দিনেই বাজার মূলধন বেড়েছে প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকা। তাতে বুধবার দিন শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়ে ৪ লাখ ২৮ হাজার ৫১০ কোটি টাকার রেকর্ড উচ্চতায় পৌঁছেছে।

ঢাকার বাজারে লেনদেন হওয়া বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বাড়ার প্রভাব তিনটি সূচকে কম-বেশি পড়েছে। তবে এদিন লেনদেন বাড়েনি। বুধবার দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ ছিল প্রায় ৫৭৭ কোটি টাকা, যা আগের দিনের চেয়ে ৩০ কোটি টাকা কম। বেশ কয়েক দিন ধরে ডিএসইতে লেনদেনে আধিপত্য ছিল সিমেন্ট খাতের বহুজাতিক কোম্পানি লাফার্জ সুরমা সিমেন্টের। গতকাল সেখানে বদল এসেছে। লাফার্জকে হটিয়ে লেনদেনের শীর্ষ স্থানে উঠে এসেছে বিদ্যুৎ খাতের দেশীয় মালিকানাধীন কোম্পানি ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন। এদিন ডিএসইতে এককভাবে কোম্পানিটির প্রায় ৫২ কোটি টাকার শেয়ারের হাতবদল হয়। আর প্রতিটি শেয়ারের দাম ৬ টাকা ১০ পয়সা বা সোয়া ৩ শতাংশ বেড়ে হয়েছে প্রায় ১৯৩ টাকা।

ডিএসইতে গতকাল মূল্যবৃদ্ধিতে শীর্ষে ছিল জেমিনি সি ফুড। এদিন মাত্র পৌনে ৪ কোটি টাকার মূলধনের এ কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের দাম ২৪ টাকা ২০ পয়সা বা ৫ দশমিক ৬২ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৪৫২ টাকা ৬০ পয়সা।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সার্বিক সূচকটি বুধবার ১২০ পয়েন্ট বেড়েছে। সেখানকার বাজারে গতকাল দিন শেষে লেনদেনের পরিমাণ ছিল প্রায় ৩০ কোটি টাকা, যা আগের দিনের চেয়ে ৭ কোটি টাকা কম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*